Back to সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর

সাধারন-সুস্থ মানুষ কখনো সন্ত্রাস করতে পারেনা

জুবায়েরের হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত সবার গ্রেপ্তার ও বিচার না হওয়া নাগাদ বর্তমান ও প্রাক্তন সকল ছাত্র-শিক্ষকদের এই দাবি আদায়ে সবাইকে সচেতন থাকার আহবান জানাচ্ছি।

পাশাপাশি জাহাঙ্গীরনগর ছাড়াও অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের শিক্ষার্থীদের "সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে" একাত্ম করার জন্য সবাইকে কমবেশি উদ্যোগ নেবার জন্য অনুরোধ করছি যাতে করে আমাদের দেশের কোন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে আর কখনো খুন-সংঘর্ষ-চাঁদাবাজি-নির্যাতনের ঘটনা না হয়।

ক্ষমতার কেন্দ্রে ও আশেপাশে থাকা দলগুলোর নেতা-কর্মীদের কাছ থেকে ১০০হাত দূরে থাকুন, এদের বর্জন করুন। এদের কোন নীতি নাই, আদর্শ নাই, শিক্ষার্থীদের পড়াশুনা নিয়ে কোন সমস্যা বিষয়ক কোন মাথাব্যাথা নাই।

বরং ছাত্র-অধিকার নিয়ে কথা বললে সরকারি দলের সমর্থক ছাত্র-নামক কুত্তার বাচ্চারা হামলা করে প্রতিবাদ-আন্দোলন বানচাল করতে। মারামারি করে, ভয় দেখিয়ে আর শিক্ষকদের কাছ থেকে অন্যায় সাহায্য নিয়ে তাদের পাশে থেকে এরা ক্যাম্পসগুলোতে জমিদারি করতে বসে।

সাধারন শিক্ষার্থীদের বুঝা দরকার যে ছাত্র সংসদ দরকার। কেননা তাহলে নিজেদের মধ্যে ভাল মানুষ হিসেবে পরিচিত, জনপ্রিয়-মানবীয় মুখগুলো সংসদের পদে বসে নিজেদের সমস্যা প্রশাসনের সাথে আলোচনা করতে পারবে ও সরকারের কাছে পৌঁছাতে পারবে।

তাছাড়াও আমি আশা করবো, সকল সচেতন ছাত্র-ছাত্রীরা ফ্রী ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ব্যক্তিগত ও সমমতের বন্ধুদের নিয়ে নিজেদের মতামত দেশে-বিদেশে আরো বেশি মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দিবে।

সন্ত্রাস কখনো "মানুষের" কোন ন্যায্য দাবি মেটানোর উপায় হতে পারেনা। সাধারন-সুস্থ মানুষ কখনো সন্ত্রাস করতে পারেনা।

to comment